1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য সাবেক ছাত্রের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত - dipanchalnews
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫৬ অপরাহ্ন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য সাবেক ছাত্রের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত

  • আপলোডের সময় : সোমবার, ৮ আগস্ট, ২০২২
  • ১৬৬ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : বরগুনা সদর উপজেলার ৪নং কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের আদাবাড়ীয়া গ্রামের বাসিন্দা মোঃ শাহাদাত হোসেন ও তার পরিবারকে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দা দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছেন তার সৎ ভাই মাহাতাব হোসেন ও তার সহযোগীরা।

ঘটনাটি ঘটে (২০ জুলাই) বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে বাদীর বসত বাড়ীর সামনে বসে। এরপর স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।

মারধরের ঘটনায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের সদ্য সাবেক ছাত্র মোঃ রাশেদুজ্জামানের হাতে কোপ লেগে আঙ্গুল কেটে যায় এবং পিটানে হাতটি ভেঙ্গে গেছে। রাশেদুজ্জামান হাতে ব্যান্ডেজ নিয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনার পর থেকে রাশেদুজ্জামান তার ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিরাপত্তায় ভুগছেন।

তাদের হাত থেকে বাঁচতে গত (২৫ জুলাই) রাশেদুজ্জামানের বাবা শাহাদাত হোসেন বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে বরগুনা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলায় আসামীরা হলেন, সৎ ভাই মোঃ মাহাতাব হোসেন, খাদিজা বেগম, লাল মিয়া ও মোসাঃ উরমি আক্তার।

সেই মামলার ১নং আসামী মাহাতাবকে থানা পুলিশ গ্রেফতার করে জেলে পাঠায়। জেল থেকে বের হয়ে সে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী সহ মিথ্যা মামলার পায়তারা চালাচ্ছেন।

মামলার বাদী মোঃ শাহাদাত হোসেন জানান, আমার চাকুরীর সুবাদে আমি দীর্ঘদিন গ্রামে না থাকায় আমার জমির একটি বড় অংশে আমার সৎ ভাই মাহাতাব জোর করে মাছের ঘের ও গাছ লাগিয়ে ভোগদখল করে। স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বর ও গণ্যমান্যরা আমার দলিল দেখে সালিসি করে সীমানা নির্ধারনী পিলার দিলে সে ক্ষিপ্ত হয় এবং তা রাতের অন্ধকারে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী নিয়ে উপড়ে ফেলে। আমি ও আমার পরিবারকে এলাকা ছাড়ার হুমকি দেয়। এদিকে এসব বিষয়ে না জড়ানো আমার বড় ছেলে চট্টগ্রাম থেকে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ভাইবা দিতে আসলে তাকেসহ আমি, আমার স্ত্রীকে মারধর ও মিথ্যা মামলা দিয়ে শারীরিক ও মানসিক হয়রানি করে যাচ্ছে। তার এই সন্ত্রাসমূলক কর্মকান্ড, মিথ্যা মামলার কারনে আমার বড় ছেলে গত ৫ আগস্ট তারিখের রেলের নিয়োগ ও ৬ আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত একটি বেসরকারী ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে নি এবং সামনের নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ ও অনিশ্চিত। যার কারনে আমি প্রশাসনের কাছে এর সঠিক বিচার চাই।

আসামী মাহাতাব জানান, শালিসি আমি মানিনা। তাই জমিতে থাকা আইলের পিলার তুলে ফেলেছি। আমি দখলকৃত জমি ছাড়বো না।

আহত রাশেদুজ্জামান জানান, জমি-জমার ঝামেলা সেটা ভিন্ন বিষয়। মাহাতাব এখন ভিন্ন ফন্দি করতেছেন। তিনি হয়তো আরো মিথ্যা মামলায় ফাঁসাবে আমিসহ পরিবারের সবাইকে। আমি এ ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

এ ঘটনার বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চৌকিদার সহ কয়েকজন জানান, মাহাতাব তার সৎ ভাই শাহাদাতের দলিলের জায়গা অন্যায়ভাবে জোরপূর্বক দখল করেছে এতে সন্দেহ নেই। তবে এই দুই গ্রুপের সমস্যা স্থানীয়রা সমাধান করতে পারবেনা। এজন্য কঠোরভাবে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme