1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
টিংকু বরগুনার মানুষের পরিচিত একটি নাম - dipanchalnews
মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০১:০৬ অপরাহ্ন

টিংকু বরগুনার মানুষের পরিচিত একটি নাম

  • আপলোডের সময় : রবিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১৯০ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

দ্বীপাঞ্চল ডেস্ক : টিংকু বরগুনার অধিকাংশ মানুষের পরিচিত একটি নাম। পুরো নাম রমিজ জাবের (টিংকু)। ১৯ ডিসেম্বর ২০২১ তার জন্মদিন। তাকে শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা।

বরগুনা রিপোর্টার্স ইউনিটির সক্রিয় সদস্য হয়েও টিংকু নিজের পেশায় সাংবাদিক নাম ব্যবহারে অপছন্দ করেন। সাংবাদিকতার অঙ্গনে ঝং ধরেছে বলে মনে করেন তিনি। তার মতে সত্যি ঘটনার থেকে মিথ্যা বেশী রটানো হয়। তাই সে বরগুনায় কর্মরত সকল সংবাদকর্মীদের সত্য ঘটনা প্রচার করতে আহবান জানিয়েছেন। টিংকুর জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর সময় এ প্রতিনিধির সাথে এসব আলাপ হয়।

অন্যদিকে টিংকু বরগুনার একটি আতংক। টিংকুর কাছে কোনো তথ্য গেলে সেটা ভাইরাল ও সমাধান হয় নিমিষেই। তাই তাকে অনেকেই অপছন্দ করেন। তাতে টিংকুর কিছু যায় আসে না।

সম্প্রতি সময়ে ঘটনাস্থলে না থেকেও টিংকু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় জেল খেটেছেন। এখনো মামলার ঘানী টানছেন। সেই মামলায় বরগুনা থেকে প্রকাশিত দৈনিক দ্বীপাঞ্চল পত্রিকার বার্তা-সম্পাদক জামাল মীর, নিউজ টোয়েন্টিফোর টেলিভিশন চ্যানেলের বরগুনা জেলা প্রতিনিধি সুমন সিকদার, সংবাদকর্মী ছগির হোসেন টিটু, আসাদুল হক সবুজ সহ মোট সাত জন রয়েছেন। যারা সংবাদ প্রকাশ করতে গিয়ে অযথাই মামলায় হয়রানীর শিকার হয়েছেন। তাদের মধ্যো জামাল মীর দীর্ঘ ১৮ মাস কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। যেটা বরগুনাবাসী খুব ভালো করেই জানেন।

রমিজ জাবের টিংকু জানান, হামলা-মামলা এসবের ভয় আমার নেই। বরগুনায় কারা কি করছে তা আমরা দেখি। অনেকে চুপ থাকে আবার অনেকে প্রতিবাদ করে। আবার যারা প্রতিবাদ করে তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে থামিয়ে দেয়া হয়। আমি কখনো থামার পক্ষে নয়। প্রতিবাদ চালাচ্ছি, চালিয়ে যাবো ইনশাল্লাহ।

তাছাড়া টিংকু তার এস.টি ছবির দুনিয়া ফেসবুক প্রফাইলে সমাজের সবাইকে উক্তি করে একটি লেখা দিয়েছেন হুবহু কপি করে দেয়া হলো- সবাই সবখানে ছবি তোলে। আমি না হয় পিছনে জুতার সমাহার রেখে। ভালোবাসার বদলে নিন্দুকেদের তরে সমালোচিতই হয়ে রইলাম…

বর্তমান সময়ের স্যোসাল মিডিয়া সহ ইলেকট্রনিকস মাধ্যমগুলোতে জনসচেতনায় বাংলাদেশের বহুল আলোচিত মুখ Sayeed Rimon এর মিডিয়া জগতে পদার্পন ও ক্ষ্যাতি অর্জনের পেছনে সব চাইতে বড় অবদান রমিজ জাবের টিংকুর এমনটি বলেছেন বর্তমান সময়ের মানবতার ফেরিওয়ালা সাঈদ রিমন।

এছাড়াও ২০০৬ সাল থেকে বরগুনা জেলা শহরে ক্যামেরা চালনা ও ভিডিও এডিটিং বিষয়ক কাজ শিখতে চাইলে রমিজ জাবের টিংকু তা তৎনগদ শিখিয়ে দিতেন বলে অনেকেই টিংকু কে বরগুনা জেলার ভিডিও এডিটিং গুরু বলে সম্বোধন করেন।

এছাড়াও বর্তমান প্রেসক্লাব সেক্রেটারি সোহেল হাফিজ সহ সিনিয়র সাংবাদিকদের হয়ে রমিজ জাবের টিংকু ক্যামেরা ও ভিডিও এডিট করে সহায়তা করেন নি এমন সিনিয়র সাংবাদিক বরগুনা শহরে পাওয়া দুস্কর।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme