1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
বাংলার উজ্জ্বল এক নক্ষত্রের চিরবিদায় - dipanchalnews
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৩৫ পূর্বাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ :
বরগুনা পৌর পান-সুপারী ব্যবসায় সমবায় সমিতি লিঃ এর কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত বরগুনায় মহিলা পরিষদের উদ্যোগে নারী নির্যাতন প্রতিরোধপক্ষ ২০২২ অনুষ্ঠিত মানবতার আরেক নাম নব-গঠিত বরগুনা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ মানবতার আরেক নাম নব-গঠিত বরগুনা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ “ধ্রুবতারা” বরগুনা জেলা কমিটির সভাপতি সুমন সিকদার, সম্পাদক অর্পিতা বরগুনায় শ্রমিকলীগের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মন্টু এর ২য় মৃত্যু বার্ষিকী পালিত জেলা আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদককে শ্রমিক লীগের শুভেচ্ছা জেলা আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সভাপতিকে শ্রমিক লীগের শুভেচ্ছা প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ শ্রমিক লীগের উদ্যোগে বরগুনায় জেল হত্যা দিবস পালিত

বাংলার উজ্জ্বল এক নক্ষত্রের চিরবিদায়

  • আপলোডের সময় : মঙ্গলবার, ২৫ আগস্ট, ২০২০
  • ২৯৩ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

স্বপন কুমার ঢালীঃ বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সেক্টর কমান্ডার মেজর জেনারেল সি.আর.দত্ত (চিত্ত রঞ্জন দত্ত) বীরউত্তম দেশবাসীকে কাঁদিয়ে আজ মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৯ টায় যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা হাসপাতালে বার্ধক্যজনিত কারণে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (দিব্যান লোকং দেহেন আত্মং স্বগচ্ছতি) । তিনি চলে গেলেন না ফেরার দেশে । মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর।
সি আর দত্ত ‘র ১ পুত্র ও ৩ কন্যা সন্তানের জনক ছিলেন।

মেজর জেনারেল (অব.) সি.আর.দত্ত বীরউত্তম গত ২০ আগস্ট বৃহস্পতিবার তাঁর বাসভবনের বাথরুমে হঠাৎ করে পড়ে যান। এতে তার পা ভেঙে যায়। এরপর তাকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তাঁর শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি ঘটতে থাকে।

স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’র ডাকে সাড়া দিয়ে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে ১১ টি সেক্টরে ভাগ করা হয়। সি আর দত্ত ওই ১১ টি সেক্টরের মধ্যে ৪ নং সেক্টর কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

সি আর দত্ত ছিলেন বাংলাদেশ রাইফেলসের (বর্তমানে বিজিবি) প্রথম ডিরেক্টর জেনারেল। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের সাবেক চেয়ারম্যান, ধর্মীয় বৈষম্যবিরোধী মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন । মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য তাকে বীর উত্তম খেতাবে ভূষিত করে সরকার।

চিত্ত রঞ্জন দত্তের জন্ম ১৯২৭ সালের ১ জানুয়ারি আসামের শিলংয়ে। তার পৈতৃক বাড়ি হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশি গ্রামে। তার বাবার নাম উপেন্দ্র চন্দ্র দত্ত এবং মায়ের নাম লাবণ্য প্রভা দত্ত। শিলংয়ের ‘লাবান গভর্নমেন্ট হাইস্কুল’-এ দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছিলেন। পরবর্তী সময়ে তার বাবা চাকরি থেকে অবসর নিয়ে হবিগঞ্জে এসে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন।

হবিগঞ্জ গভর্নমেন্ট হাইস্কুল থেকে ১৯৪৪ সালে তিনি মাধ্যমিক পাস করেন। পরবর্তী সময়ে কলকাতার আশুতোষ কলেজে বিজ্ঞান শাখায় ভর্তি হয়ে ছাত্রাবাসে থাকা শুরু করেন তিনি। পরে খুলনার দৌলতপুর কলেজের বিজ্ঞান শাখায় ভর্তি হন এবং এই কলেজ থেকেই বি,এস-সি পাস করেন। সি আর দত্ত পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন ১৯৫১ সালে। চাকুরিতে কর্মরত অবস্থায় প্রায় ২০ বছর কাটিয়েছেন পশ্চিম পাকিস্তানে। মাঝে মাঝে আসতেন নিজের এলাকায়।
মেজর জেনারেল (অব.)সি. আর.দত্ত বীর উত্তমের আজন্ম লালিত স্বপ্ন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা হবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ভাসিত বাংলাদেশ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme