1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
দীর্ঘ সারে তিন মাস পরে খুলছে ‘কুয়াকাটা’ পর্যটন শিল্প - dipanchalnews
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৫৬ অপরাহ্ন

দীর্ঘ সারে তিন মাস পরে খুলছে ‘কুয়াকাটা’ পর্যটন শিল্প

  • আপলোডের সময় : শুক্রবার, ২৬ জুন, ২০২০
  • ৩৪৪ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

এইচ,এম,হুমায়ুনকবির কলাপাড়া: পটুয়াখালীর সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটা দীর্ঘ ৩ মাস ১৩ দিন পরে চলমান করোনায় মধ্যে স্বাস্থ্যবিধী মেনে কুয়াকাটার হোটলে মোটেলসহ কুয়াকাটার ট্যুরিজমের সকল সেক্টরকে খোলার অনুমতি দিয়েছেন পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক। গত ৫ই জুন পর্যটকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য বাংলাদেশ ট্যুরিজম র্বোডের আয়োজন ও হোটেল মোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের সহযোগীতায় অভিজাত হোটেল গ্রেভারইনে ৩ দিনের ট্রেনিং উদ্বোধন করেন পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক।

পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক করোনা ভাইরাস‘র শুরুতেই ১৭ মার্চ কুয়াকাটার পর্যটন শিল্পকে লিখিত ভাবে বন্ধ করে। এর পরেই সাগরকন্যা কুয়াকাটায় দির্ঘ ৩ মাস ১৩ দিন বন্ধ থাকে পযর্টন শিল্প। যার ফলে কয়েকশ কোটি টাকা লোকসানের মুখে এখানকার ট্যুরিজমের সাথে থাকা ব্যবসায়ীদের।

গত মাসে সারা দেশে গণপরিবহন ছাড়লেও বন্ধ রয়েছে কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল মোটেল, রিসোর্ট,পার্ক, ওয়াটার বাস, ট্যুরিস্ট বোট, আচারের দোকান, ছাতা ব্যঞ্চ,শুটকির দোকান , কাকরার ফ্রাইর দোকান, গুরুত্বপূর্ন শপিং মহল, রাখাইন মহিলা মার্কেটসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ক্ষতির লোকসানে পরে কয়েক হাজার কোটি টাকা। এই ব্যবসাকে কেন্দ্র করে বেকার হচ্ছে কয়েক হাজার শ্রমিক । অক্লান্ত পরিশ্রমর পরে কুয়াকাটা হোটেল মোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের একটি প্রতিনধিদল পটুয়াখালী জেলা প্রশাসকের সাথে দেখা করলে সে আগামী ১ জুলাই পর্যটকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে আবাসিক হোটেল সহ সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতিদেয়। এ আশার বানী কুয়াকাটায় পৌছালে ব্যবসায়ীদের মাঝে উৎফুল্ল দেখাযায়। এতে তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই এর মাঝে তারা স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য কর্মচারীদের ট্রেনিং করেছেন।

কুয়াকাটা সী ট্যু এন্ড ট্রালেস পরিচালক জনি আলমগীর বলেন, এই মহামারিতে আমাদের ব্যবসা বন্ধ অনেক ক্ষতির মুখে আমরা। সৈকত হোটেলের শেখ জিয়াউর রহমান বলেন, আমাদের হোটেল বয়দের ট্রেনিং দেয়া হয়েছে। আমরা চেষ্টা করবো পর্যটকদের সুরক্ষা দিতে।

হোটেল গ্রেভারইন ম্যানেজার সাজ্জাত মিতুল বলেন, মহামারিতে দেশের সকল অফিস তো কাজ করতেছে আমরা কেন পারবোনা আমরা ও পারবো পর্যটকদের সুরক্ষা দিতে।
কুয়াকাটা হোটেল মোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এম এ মোতালেব শরিফ বলেন, আজ আমাদের সংগঠনের কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য ট্রেনিং দিয়েছি। আমরা সরকারে শর্তবলী মেনে চলার জন্য বাধ্য।

এ ব্যাপারে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী বলেন, সরকারের দেওয়া শেষ প্রজ্ঞাপনের শর্তবলী মেনে আবাসিক হোটেল খোলা রাখতে পারবো। কিন্তু কুয়াকাটার হোটেল মোটেল এতদিন বন্ধ রাখেন মালিকরা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme