1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
বরগুনায় মেয়েকে গাছের সাথে বেঁধে রেখে মাকে গণধর্ষণ - dipanchalnews
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১০:৪১ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ :
দক্ষিণাঞ্চলের স্বপ্নের দুয়ার খুলছে আজ হাইকোর্টে দুই মামলায় খালেদা জিয়ার স্থায়ী জামিন টাঙ্গাইলে নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদযাপিত- বরগুনায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে হজ্জ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত মঠবাড়িয়ায় হাত-পা বেঁধে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা, বৃদ্ধ গ্রেপ্তার টাংগাইলে জাতীয় শিশু কিশোর ইসলামী সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান- বরগুনায় ইসলামি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দুঃস্থদের মাঝে সরকারি যাকাত ফান্ডের চেক বিতরণ জেলায় শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ নির্বাচিত মাওঃ মুহাম্মদ ইউনুস আলী বরগুনায় কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত “প্রত্যাবর্তনের চার দশক,শেখ হাসিনার বদলে দেওয়া বাংলাদেশের,অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা”

বরগুনায় মেয়েকে গাছের সাথে বেঁধে রেখে মাকে গণধর্ষণ

  • আপলোডের সময় : শুক্রবার, ১ মে, ২০২০
  • ১০০২ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

জুলহাস: বরগুনায় ৭ বছরের কন্যা সন্তানকে গাছের সাথে বেধে মেয়েকে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে মাকে গনধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার (২২ এপ্রিল) গৃহবধূ তার কন্যা সন্তানকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি পিরোজপুর জেলাদিন মঠবাড়িয়া উপজেলার শাপলেজা গ্রাম থেকে পটুয়াখালী কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর গ্রামে খালাবাড়ি রওনা দেয়। শশুর বাড়ি থেকে পাথরঘাটা খেয়া পাড়হয়ে তালতলী শুভসন্ধ্যা ঘাটে পৌছায়। সেখান থেকে ভাড়ায় চলিত মোটরসাইকেল নিশানবাড়িয়া খেয়াঘাটে রওনা করে। মোটরসাইকেল ড্রাইভার তাদেরকে নিয়ে নির্জন জঙ্গলে দিকে যায়। সেখানে নিয়ে এলাকার কয়েকজন বকাটে মিলে সন্তানকে গাছের সাথে বেঁধে রেখে মাকে গণধর্ষণ করে।

গৃহবধূ জানায় সকাল ৮ টার দিকে শশুর বাড়ি থেকে রওনা দিয়ে পাথরঘাটা পৌছায়। পাথরঘাটা থেকে নৌকা পাড়হয়ে তালতলী উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের শুভসন্ধ্যা ঘাটে নামি। তারপর এক মোটরসাইকেল ড্রাইভারের সাথে নিশানবাড়ীয়া খেয়াঘাট যাওয়ার চুক্তি করি। মোটরসাইকেল ড্রাইভার আমাকে নিশানবাড়ীয়া খেয়াঘাট না নিয়ে বাগানের দিকে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তার সঙ্গীয় আরেক মোটরসাইকেল ড্রাইভার ও তার সঙ্গে থাকা আরও পাঁচজন লোক মোবাইলে ডেকে আমার মেয়েকে গাছের সাথে ওড়না দিয়ে বেঁধে গলায় ছোরা ধরে। মেয়েকে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে। তিনি আরও বলেন, তারা আমাকে অজ্ঞান অবস্থায় ফেলে রেখে চলে যায়। আমার জ্ঞান ফেরার পরে ওই জায়গা থেকে একবাড়িতে এসে একটু পানি খেতে চাইলে গ্রামবাসী কেউ আমাকে একটু পানি পর্যন্ত দেয়নি। তারপর ওই এলাকার কয়েকজন লোক পাশেই ট্রলার মেরামত করতেছিল তারা আমাকে একটি মোটরসাইকেল ভাড়া করে দেয় আমি আমার খালা বাড়ি চলে আসি। আমার মামলা করার মত তেমন কোন টাকা পয়সা নেই তাই আমি থানায় মামলা করতে যাইনি। আপনারা সাংবাদিক আমি আপনাদের মাধ্যমে আইনের হাতে ঘটনার কঠোর বিচার চাই।

এঘটনায় স্থানীয় গ্রাম পুলিশ সেলিম, দুলাল হোসেন, লিটন মোটরসাইকেল ড্রাইভার হাবিব, চা দোকানদার কবির সাংবাদিকদের জানান, আমরা শুনেছি যে একজন মহিলা তার মেয়েকে নিয়ে শুভ সন্ধ্যা থেকে নিশানবাড়িয়া খেয়াঘাট যাবে, কিন্তু মোটরসাইকেল ড্রাইভার জহিরুল নিশানবাড়ীয়া না-নিয়ে শুভ সন্ধ্যার গভীর জঙ্গলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে, শুনেছি জহিরুলের সঙ্গে আছিল এমাদুল, সোহাগ, নজরুল, সাইদুল।

এব্যাপারে তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি কামরুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, ভিক্টিম নিজেই থানায় এসেছে , ভিক্টিমের জবানবন্দি নিয়েছি এবং মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme