1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেখে আহত জামালের বাড়িতে ছুটে গেলেন অ্যাডভোকেট সুনাম দেবনাথ - dipanchalnews
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৬:১০ অপরাহ্ন

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেখে আহত জামালের বাড়িতে ছুটে গেলেন অ্যাডভোকেট সুনাম দেবনাথ

  • আপলোডের সময় : বুধবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৪৭ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

জুলহাস: গতকাল২৮/০৪/২০২০ সাংবাদিক শাহ্‌ আলীর ফেসবুকে জামাল হোসেনকে নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েচগে। স্ট্যাটাসটি দেখা মাত্রই অ্যাডভোকেট সুনাম দেবনাথ বিষয়টি আমলে নেয় পরে আজ বুধবার সকাল সাড়ে দশটায়স সড়ক দুর্ঘটনায় আহত জামালের বাড়িতে ছুটে যায় সুনাম দেবনাথ। কিছু ফল এবং আর্থিক সহায়তা করেন তিনি।

জামালের মা কান্না কন্ঠে বললেন, আমার কর্মঠো ছেলে আজ দীর্ঘ এক মাস বাড়িতে একই বিছানায় শুয়ে আছে। দুটি পাই ভেঙে যায়। বড় কষ্টের বিষয় হচ্ছে, আমার বাড়ির আশেপাশের একজন মানুষ কিংবা আমার আত্মীয়-স্বজনরাও কখনো দুচোখ দিয়ে আমার ছেলেটাকে দেখতে আসলো না। বরগুনায় অনেক বিত্তবান মানুষ রয়েছে যারা একটু হাত বাড়িয়ে দিলে আমার ছেলেটা সুস্থ হয়ে উঠতে পারবে। এই প্রথম সুনাম দেবনাথ এসেছে আমার বাড়িতে আমি অনেক খুশি হয়েছি, বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন জামালের মা।

জামাল হোসেন বলেন, আজ আমি বড় অসহায় । দুটি পা দিয়ে কাজ করতে পারছি না। বরগুনা জেলা পরিষদের মালামাল কিনতে গিয়ে আজ আমার পা দুটি হারানোর পথে। দুঃখের বিষয় হচ্ছে জেলা পরিষদের একজন ব্যক্তিও আমাকে এক নজর দেখতে আসলো না এমনকি আমার খোঁজ খবরও নিল না। এই প্রথম সুনাম দেবনাথ আমার বাড়িতে এসে খোঁজ-খবর নিলো। আমি তার কাছে চির কৃতজ্ঞ। যতদিন বাঁচবো তার কথা স্মরণ করবো। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে করে আমি সেই আগের মতো কাজ করে পরিবার পরিজনকে নিয়ে দু’মুঠো খেয়ে বাঁচতে পারি।

বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সুনাম দেবনাথ বলেন, আমি শাহ্ আলীর ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেখি সড়ক দুর্ঘটনায় জামাল হোসেন নামে এক যুবক গুরুতর আহত দুটি পাই ভেঙে গেছে। দেখেই আমি জামালের খোঁজখবর নেওয়া শুরু করেছি। পরে আজ সকালে জামালকে দেখতে তার বাড়িতে ছুটে এসেছি। জামালের মুখ থেকে সড়ক দুর্ঘটনা কথা শুনে আমি অবাক হলাম। দীর্ঘ এক মাস একই বিছানায় শুয়ে ছটফট করছে দেখি ভীষণ কষ্ট পেলাম। আমার সামর্থ্যন অনুযায়ী জামালকে সহযোগিতা করেছি। এই সমাজে যারা বিত্তবান রয়েছেন যে যা পারেন তাই দিয়ে সবাই জামালকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন এবং সবাই জামালের জন্য দোয়া করবেন। যাতে করে জামাল নতুন করে বাঁচতে পারে।

শাহ্‌ আলী বলেন আমার দুঃখ লাগে জামালের স্ট্যাটাসটি লিখে অনেক বিত্তবানদের মেসেঞ্জারে নক করেছি সহযোগিতা পাওয়ার জন্য। কিন্তু কারো সাড়া পাইনি। আমরা বিভিন্ন সময় দেখি অনেক বিত্তবানরা অসহায় মানুষদের পাশে থাকেন এবং এগিয়ে আসেন। কেউ যদি জামালের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের মুখের দিকে তাকান, তাহলে আমি নিশ্চিত কেউ সহযোগিতা না করে বাড়ি থেকে আসতে পারবেন না। তারপরও সবাইকে বলবো। টাকা-পয়সা ধন-দৌলত কারো কবরে যাবে না । সবই পড়ে থাকবে। অসহায় মানুষদের পাশে থেকে যা করে যেতে পারবেন সেটাই আপনার চিরসঙ্গী হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme