1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
বিশ্ব আজ চিরঋণি যাদের কাছে - dipanchalnews
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১০:০৪ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ :
দক্ষিণাঞ্চলের স্বপ্নের দুয়ার খুলছে আজ হাইকোর্টে দুই মামলায় খালেদা জিয়ার স্থায়ী জামিন টাঙ্গাইলে নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদযাপিত- বরগুনায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে হজ্জ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত মঠবাড়িয়ায় হাত-পা বেঁধে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা, বৃদ্ধ গ্রেপ্তার টাংগাইলে জাতীয় শিশু কিশোর ইসলামী সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান- বরগুনায় ইসলামি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দুঃস্থদের মাঝে সরকারি যাকাত ফান্ডের চেক বিতরণ জেলায় শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ নির্বাচিত মাওঃ মুহাম্মদ ইউনুস আলী বরগুনায় কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত “প্রত্যাবর্তনের চার দশক,শেখ হাসিনার বদলে দেওয়া বাংলাদেশের,অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা”

বিশ্ব আজ চিরঋণি যাদের কাছে

  • আপলোডের সময় : শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ৪৮৫ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

যারা দিন-রাত এক করে ঠিক রেখেছে সঠিক ও সবটুকু সেবার মানদন্ড। নিজের কথা না ভেবে, ভেবেছেন সবার কথা। জীবনের শুরুটা যাদের সেবার মধ্য দিয়ে সূচনা হয়ে মাটির গহ্বরে যাওয়া পর্যন্ত গিয়ে সমাপ্ত হয়। আর রেখে যায় হাজারও মানুষের মনের মাঝে ফুটন্ত এক নিষ্পাপ চেহারা। তাঁদের কথা মানুষের মাঝে মাঝে মনে পড়লেও, মনে ব্যাথা দেয় আগের সেই সময়টিকে স্মরণ করে। যখন একজন অসুস্থ্য ঘর থেকে বের হয়ে আসা মানুষটিকে সুস্থ করে আবার নিজ ঘরে ফিরিয়ে দিয়েছিলো। সুন্দর একটি হাঁসি দিয়ে যখন জিজ্ঞেস করেছিলো আপনার কোথায় কষ্ট? কেমন লাগছে আপনার? তখনই অসুস্থ মানুষটির মনের মধ্যে জমে থাকা সবটুকু যন্ত্রণা গড়গড় করে খুলে বলা শুরু করে। পূর্ণ সেবার ছাঁয়া দিয়ে, ভালোবাসার বিন্দু দিয়ে যখন সাড়িয়ে তোলা হয়। যখন জিজ্ঞেস করলে একটি মুচকি হাঁসি দিয়ে বলে আমি ভালো আছি। তখন যেনো মনের ভিতর থেকে একটি চাঁপা পাথর সরে যায় একজন চিকিৎসকের। হ্যাঁ তাঁদের কথাই বলছি। আজ এমন করোনার ছোঁবলে যখন বিশ্ব আতকে উঠেছে, যখন সব মানুষগুলি ঘরে বন্দি হয়ে রয়েছে। ঠিক তখনই বিন্দু মাত্র পিছু না হটে, চলেছেন সামনের দিকে। মনের মাঝে একটি মাত্র প্রতিজ্ঞার সাথে চাওয়া- সুস্থ হোক মানুষ, সুস্থ হোক দেশ। আমি মুসলিম হিসেবে আমার ধর্ম ইসলাম, আমি হিন্দু হিসেবে আমার ধর্ম হিন্দু। এভাবে প্রত্যেকটি মানুষের ধর্ম রয়েছে। রয়েছে ধর্মের মূল পূজারি। অনেকেই তাঁদের দু’চোখের পাতায় সহ্য করতে পারেন না। মাঝে মাঝে বলে থাকেন কটু কথা। কিন্তু যখন কেউ মৃত্যু বরণ কিংবা বিবাহ বন্ধন অথবা ধর্মানুষ্ঠান করতে গেলে ভালো কথা বলে ছুটে যান তাঁদের কাছে। ঠিক এভাবেই একজন চিকিৎসক, একজন নার্স কিংবা চিকিৎসা জগতের সাথে সম্পর্কিত কোন ব্যক্তিকে বিন্দু মাত্র ত্রুটি হলেই গালাগাল দেয়া শুরু করে এই সমাজের অনেকেই। আসলে এমন ব্যবহার করা কি ঠিক? ছুড়ি দিয়ে ডাকাত করে খুন। কিন্তু একজন চিকিৎসক প্রাণ বাঁচানোর কাজে ব্যবহার করেন ছুড়ি। মানুষতো ভুলের উর্দ্ধে নয়। তাহলে এমন ব্যবহার কেনো আমাদের? আজ এমন মহামারি পরিস্থিতি কিংবা অসুস্থ হলেই ডাক্তারের স্মরণাপন্ন হই। তখন আমাদের সম্মানের আর ভিজে কথার অন্ত থাকেনা মুখে। আসলে সম্মানটা কি সবসময় পাওয়ার যোগ্য নয় একজন চিকিৎসক? চিকিৎসার সর্বোচ্চটুকু দিয়ে আগের মতো সুস্থ করে তোলার চেষ্টা করেন। তিনি অসুস্থ ব্যাক্তিটিকে জিজ্ঞেস করেন কেমন আছেন? ভালো লাগছে কি আগের থেকে? আমরা কি কখনো তাঁকে জিজ্ঞেস করেছি, তিনি কেমন আছেন? না, তা কখনোই করিনা। উল্টো নিন্দুকের মতো ত্রুটি খুঁজে বেড়াই। হ্যাঁ নিন্দুক হওয়া ভালো। তবে পিছন থেকে নয়, বরং সামনে গিয়ে বলেন তাঁর ত্রুটি। নিজেকে সুধ্রে নিবে। আজ আমাদের সেবা দিতে গিয়ে দেখুন নিষ্পাপ, নিষ্কলঙ্ক কত চিকিৎসক নিজের প্রাণ বিসর্জণ দিয়েছেন! হারিয়ে গেছে জীবনের মূল ধারার সুখটুকু। পরিবার হারিয়েছে কারোর স্বামীকে, কারোর পিতাকে, আবার কারোর সন্তানকে। এভাবেই হারিয়ে যায় সবটুকু আশা! তাই একজন চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলুন। এমন করোনা মহামারি থেকে নিজেকে ও পরিবারকে সুরক্ষিত রাখতে ঘর থেকে বের না হই। প্রয়োজনে বের হলে মাস্ক, হ্যন্ড গ্লাভস ব্যবহার করি। সামাজিক দুরত্বতা বজায় রাখি। বেশি বেশি হাত ধোয়ার পাশাপাশি নিজের শরীর ও কাপড় পরিষ্কার রাখি। গরম পানির গড়গড়া, লেবুর সরবত এবং ঠান্ডাকে এড়িয়ে চলি। হাঁচি দেয়ার সময় কনুই ভাজে মুখ লুকিয়ে কিংবা রুমাল বা টিস্যু ব্যবহার করি। টিস্যুটিকে বন্ধ বিনে ফেলে দিয়ে রুমালটিকে ধুয়ে নিবো। নভেল করোনা থেকে রক্ষা পেতে সবথেকে আগে নিজেকে সাবধান রেখে সরকার কর্তৃক ঘোষিত আইন ও স্বাস্থ বার্তা মেনে চলি। তাহলেই সুস্থ হবে মানুষ, সুস্থ হবে দেশ।

লেখক- এম.এস রিয়াদ
সাহিত্য-সম্পাদক ও সিঃ স্টাফ রিপোর্টার
দৈনিক দ্বীপাঞ্চল।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme