1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
করোনা প্রতিরোধে বরগুনায় জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কার্যক্রম অব্যাহত - dipanchalnews
বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০১:০৪ অপরাহ্ন

করোনা প্রতিরোধে বরগুনায় জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কার্যক্রম অব্যাহত

  • আপলোডের সময় : মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ, ২০২০
  • ২১২ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

এম.এস রিয়াদঃ করোনা আতঙ্ক নয় বরং সচেতন হওটাই মূখ্য বিষয়। এমন বক্তব্যই চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের। তবুও বিশ্ব এখন নিরব ও নিস্তব্দ মূখর অবস্থায়। করোনা আতঙ্ক যেনো বিশ্ব মনে একটি ভারি ভাইরাস হয়ে বইছে। বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশে করোনা থেকে রক্ষা পেতে সারা দেশের ন্যায় বরগুনা জেলায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গুরুত্বের সাথে করোনা প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন। গোটা জেলায় সকাল সাতটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত শুধুমাত্র চিকিৎসালয়, ওষুধের দোকান, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান (মুদি,মনোহরি, কাঁচা সবজি,মাছ ও মাংস)’র দোকান ব্যতিত সকল প্রতিষ্ঠান (সরকারি দপ্তর ব্যতিত) বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছেন বরগুনা জেলা প্রশাসন। পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন বিপিএম,পিপিএম এর নির্দেশনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ শাহজাহানের নেতৃত্বে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক করণীয় বিষয়গুলোকে মানুষের মাঝে নিশ্চিত করতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে চব্বিশ ঘন্টাই শহরের ওলি-গলি ও প্রধান সড়কগুলোতে নিয়মিত মহড়া চালাচ্ছেন। হ্যান্ডমাইকের মাধ্যমে মানুষকে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধ করতে নিয়ম-কানুন মেনে চলার জন্য আহ্বান করে যাচ্ছে। পুলিশের পাশাপাশি জেলা তথ্য অফিস, পৌরসভা, বাংলাদেশ স্কাউটস্, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটিসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনগুলো সাধারণ মানুষের পাশে থেকে সচেতনতা বৃদ্ধি করে চলেছেন। করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন হোন, আতঙ্কিত হবেন না। করোনা প্রতিরোধে নিজে সচেতন হোন, অন্যকে সচেতন করুন। অপরিষ্কার হাত দিয়ে চোখ, নাক ও মুখ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকা ও পরিচিত বা অপরিচিত ব্যক্তির সাথে হাত মেলানো বা আলিঙ্গন করা থেকে বিরত থাকলেই করোনার আক্রমন থেকে রেহাই মিলবে। তবে সাবান ও পানি দিয়ে ভালো করে ৪০-৬০ সেকেন্ড হাতের কব্জি পর্যন্ত পরিষ্কার করতে হবে। অথবা অ্যালকোহলযুক্ত স্যানিটাইজার দিয়ে ২০-৩০ সেকেন্ড হাত পরিষ্কার করতে হবে। হাঁচি বা কাশি দেওয়ার সময় হাতের কনুই এর ভাঁজে বা টিস্যু দিয়ে মুখ ও নাক ঢাকতে হবে। ব্যবহৃত টিস্যুটি দ্রুত বন্ধ ডাস্টবিনে ফেলে দিয়ে সাবান ও পানি অথবা স্যানিটাইজার দিয়ে ভালো করে হাত পরিষ্কার করে নিতে হবে। করোনা ভাইরাসটি মূলত আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি-কাশির মাধ্যমে, আক্রান্ত ব্যক্তিকে স্পর্শ করলে ও পশু-পাখি বা গবাদি পশুর মাধ্যমে ছড়িয়ে থাকে। তাই প্রত্যেকেরই মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লোবস্ পরিধান করা উচিৎ। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হলে তার মধ্যে প্রথম লক্ষণ হয়ে দেখা দেয় জ্বর। এছাড়াও শুকনো কাশি ও গলা ব্যাথা হতে পারে, শ্বাসকষ্ট ও নিউমোনিয়া দেখা দিতে পারে। তবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকলেই এর থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব। জেলা জণস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনগুলো শহর ও বিভিন্ন শাখা রাস্তার মোড়ে পানির ড্রাম ও সাবানের ব্যবস্থা করেছেন। যাতে করে বাজারের কাজ শেষ করে হাত ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে পারেন। গণপরিবহন ও মানুষের ভিড় এড়িয়ে চলার পাশাপাশি করোনা থেকে মুক্তির মূল মন্ত্রই হল নিজেকে সচেতন রেখে অন্যকে সচেতন করা এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার সাথে চলাফেরা করা। সরকার কর্তৃক ঘোষিত করোনা প্রতিরোধে যে সকল নিয়ম-কানুন রয়েছে, তা না মেনে চললে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। সেই সাথে বিদেশ থেকে আগত প্রবাসীদের নিজ দায়িত্বে হোমকোয়ারাইন্টেনে থাকার জন্য বলা হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme