1. dipanchalbarguna@gmail.com : dipanchalAd :
নৌবাহিনীর উদ্যোগে বরগুনা শহর ক্লিনিং - dipanchalnews
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫১ অপরাহ্ন

নৌবাহিনীর উদ্যোগে বরগুনা শহর ক্লিনিং

  • আপলোডের সময় : সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০
  • ৭৩১ বার নিউজটি দেখা হয়েছে

এম.এস রিয়াদঃ করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের উদ্যোগে দেশের সর্বত্র কাজ করে যাচ্ছেন সশস্র বাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৫ মার্চ থেকে বরগুনায় অবস্থান করছেন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একটি গ্রুপ। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ নৌবাহিনী বরগুনা জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার সহযোগিতায় করোনা (কোভিড-১৯) ভাইরাস মোকাবেলায় ও “ঘরের বাইরে এখন নয়, করোনা করব জয়-বিদেশ থেকে এসেছি যারা, কোয়ারেন্টাইনে থাকব আমরা”এমন স্লোগানকে সামনে রেখেই বিভিন্ন পদক্ষেপ হাতে নিয়েছেন। পদক্ষেপের মধ্যে ফ্রি মাস্ক বিতরণ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে ১০% ক্লোরিনযুক্ত সোলিয়েশন ব্যবহারের মাধ্যমে আড়াই হাজার লিটার পানি দ্বারা টাউনহল ও অগ্নিঝড়া একাত্তর চত্ত্বর থেকে শুরু করে শহরের প্রধান ও শাখা সড়কগুলোকে জীবানুমুক্ত করার লক্ষে কাজ শুরু করেছেন।

 

এর পরই জেলার অন্য পাঁচটি উপজেলাগুলোতে একইভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালাবেন। এর পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে করোনা প্রাদুর্ভাব মোকাবেলার জন্য স্বাস্থ সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে প্রাথমিক ধারণা দিয়ে যাবেন। আজ সোমবার দুপুর দুইটার দিকে এমন কথাই বলেছেন কর্মসূচির উদ্বোধক বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন মোহাব্বত আলী।

উদ্বোধনকালে বরগুনা জেলায় অবস্থানরত নৌ কমান্ডার এম.নুরুজ্জামানসহ অন্যান্য নৌ অফিসারবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় নৌবাহিনীর মেডিকেল অফিসার লেপ্টেন্যান্ট কমান্ডার আশিক সকলের উদ্দেশ্য করে জীবানুনাশক স্প্রে তৈরি করার একটি প্রাথমিক ধারণা দেয়। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস মূলত বেশি সময় নিয়ে বাতাসে ভেসে থাকতে পারেনা। যার ফলে মাটিতে পরে যায়। ভাইরাসটি চব্বিশ থেকে বাহাত্তর ঘন্টা পর্যন্ত বেঁচে থাকে। তাই একে ধ্বংশ করার বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করা যেতে পারে। তিন অথবা ছয় ফুট দুরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লোবস্ ব্যবহার করা এবং বারবার হাত ধৌত করা অত্যাবশ্যকীয়। ভাইরাসটি ধ্বংশ করতে খুব সহজ পদ্ধতি বিশ লিটার পানির সাথে এক চামচ বিলিসিং পাউডার যুক্ত করে জীবানুনাশক স্প্রে তৈরি করা যেতে পারে। তাছাড়া দশ ভাগ পানির সাথে ১০% ক্লোরিন সোলিয়েশন দিয়েও এই স্প্রে তৈরি করা যেতে পারে। ভাইরাসটি মাটিতে পরে যাওয়ার ফলে মানুষের পায়ে প্রবেশ করতে পারে বলে একটি ট্রে ও ফোমের সাথে তৈরিকৃত ক্লোরিন অথবা বিলিসিং পাউডারযুক্ত পানি দ্বারা ফুট ক্লিনিং তৈরি করে বাসা, অফিসে ব্যবহার করা যেতে পারে। ব্যবহারের সময় পায়ে থাকা জুতোকে ভালোভাবে ভিজিয়ে পাপোসে মুছে নিতে হবে। করোনা (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে আতঙ্ক নয় বরং সচেতনতাই মূখ্য।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুণ :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর :
© All rights reserved © 2020 The Daily Dipanchal
Customized By BlogTheme